মেয়েদের ইমপ্রেস করার মত কিছু প্রশ্ন

আমরা অনেকেই মেয়েদের ইমপ্রেস করার চেষ্টা করি কিন্তু বুঝতে পারে না কি ধরনের প্রশ্ন করলে মেয়েদের ইমপ্রেস করাটা সহজ হবে। মেয়েদের ইমপ্রেস করার জন্য কিছু স্পেসিফিক প্রশ্ন রয়েছে যেগুলো করলে তারা আপনাকে একটু স্পেশাল ভাববে। মেয়েদের চোখে নিজেকে স্পেশাল পারসন হিসেবে দেখাতে না পারলে খুব সহজে তারা ইমপ্রেস হবে না।

আপনারা লক্ষ্য করে থাকবেন একটি সুন্দরী মেয়েকে পটানোর জন্য অনেক ছেলে তার পিছনে লেগে থাকে। যেহেতু অনেক ছেলে একটি মেয়ের পেছনে লেগে থাকে তাই মেয়েরা ছেলেদের খুব সহজে পাত্তা দিতে চায় না। সুতরাং আপনি যদি অন্যান্য ছেলেদের থেকে আলাদা না হোন তাহলে মেয়েটিকে ইমপ্রেস করা আপনার জন্য কঠিন হয়ে পড়বে। অন্যান্য ছেলেরা যেভাবে মেয়েটিকে ইমপ্রেস করার চেষ্টা করে আপনিও যদি সে পথে হাঁটেন তবে কোনোভাবেই মেয়েটির পাত্তা পাবেন না। অন্যান্য ছেলেরা যে পথে হাটে আপনাকে হাঁটতে হবে তার বিকল্প পথে। আপনাকে চেষ্টা করতে হবে একদম স্পেশাল কোন উপায়ে।

আমাদের আজকের লেখায় আমরা তুলে ধরতে চলেছি কোন ধরনের প্রশ্ন করে একটি মেয়েকে খুব সহজে ইমপ্রেস করতে পারবেন। সাধারণত অন্যান্য ছেলেরা যেসব প্রশ্ন করে থাকে আপনি সেসব প্রশ্ন একদমই করতে যাবেন না। আপনার প্রশ্নগুলো হবে একদম ভিন্নধর্মী এবং যুক্তিযুক্ত। সে গ্রহণ করবে এমন প্রশ্নই তাকে করতে হবে এবং তার কাছ থেকে উত্তর আদায় করে নিতে হবে। আপনি যদি গ্রহণযোগ্য প্রশ্ন তাকে করে থাকেন তবে সে আপনাকে অন্যদের থেকে আলাদা ভাবে এবং আপনার কথার রেসপন্স করার চেষ্টা করবে।

কোন মেয়েকে যদি আপনি পছন্দ করে থাকেন তবে অন্যান্য ছেলেদের মতো প্রথমেই তার গা ঘেসার চেষ্টা করবেন না। আপনি চেষ্টা করবেন একটু দূরে দূরে থেকেই মেয়েটির মনোযোগ নিজের দিকে নিয়ে আসতে। মেয়েটির সাথে যদি কথা বলার মত সুযোগ তৈরি হয় তবে প্রথম দিকে একদম সাধারন কিছু প্রশ্ন করার চেষ্টা করবেন। প্রথম দিকে এমনিতেই দুজন পরিচিত হবেন এবং আস্তে আস্তে তার ভালো লাগার বিষয়গুলো নিয়ে প্রশ্ন করার চেষ্টা করবেন। একটি মেয়েকে তার ক্যারিয়ার নিয়ে প্রশ্ন করলে সে ব্যাপারটা ইতিবাচক ভাবে নেয় এবং এক্ষেত্রে উত্তর দেওয়ার ব্যাপারে সে সিরিয়াস হয়।

একটি মেয়েকে আপনি তার বন্ধুত্বের ব্যাপারে প্রশ্ন করতে পারেন। তার কেমন বন্ধু রয়েছে অথবা কেমন বন্ধু সে চায়, কি ধরনের মানুষের সাথে সে বন্ধুত্ব করতে ইচ্ছুক এই ধরনের প্রশ্নগুলো। এই প্রশ্নগুলো করার পর আপনি তার ভালো লাগার ব্যাপারগুলো খুব সহজেই বুঝে নিতে পারবেন এবং কোন মানুষগুলোকে সে সবচেয়ে বেশি পছন্দ করে তা জেনে নেওয়াটা সহজ হবে। আপনি মেয়েটির কাছে তার পরিবার নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করতে পারেন। তার পরিবারে কে কে রয়েছে এবং কে সবচেয়ে তাকে বেশি ভালোবাসে। মেয়েটি তার পরিবারের কাকে কাকে সবচেয়ে বেশি ভালবাসে এসব নিয়েও প্রশ্ন করতে পারেন।

বেশিরভাগ মেয়েরা তাদের বাবাকে ভীষণ ভালোবাসে তাই মেয়েটির বাবা কে নিয়ে প্রশ্ন করতে ভুলবেন না। তার বাবা তাকে কেমন ভালোবাসে, কতটা শাসন করে এগুলো নিয়ে আপনারা আলোচনা করতে পারেন। এভাবে কথা বলতে বলতে নিজের অজান্তেই আপনাদের মধ্যে বন্ধুত্ব তৈরি হয়ে যাবে। মেয়েটি নিজেও বুঝতে পারবে না সে নিজে থেকে আপনার সাথে এতটা কথা বলতে শুরু করেছে। যখন সে ব্যাপারটি অনুধাবন করতে পারবে তখন আপনার প্রতি তার ভালো লাগা কাজ করবে।

যখন আপনি বুঝতে পারবেন মেয়েটি আপনার প্রতি একটু হলেও দুর্বল হয়েছে তখন আস্তে আস্তে আরেকটু সিরিয়াস টাইপের প্রশ্ন করতে শুরু করবেন। যখন আপনাদের মধ্যে বন্ধুত্ব তৈরি হবে তখন তাকে প্রশ্ন করতে পারেন তাকে কখনো কোন ছেলে প্রপোজ করেছে কিনা অথবা কোন ছেলেকে সে পছন্দ করে কিনা এগুলো নিয়ে। আপনি চাইলে মেয়েটির সৌন্দর্য নিয়েও বিভিন্ন প্রশ্ন করতে পারেন যেমন তার চুল যদি বড় হয় তবে জিজ্ঞেস করতে পারেন আপনার চুলকে ছোট থেকেই এমন লম্বা? আপনি যদি পাগলের মত মেয়েটিকে এমন আবোল তাবোল প্রশ্ন করতে থাকেন তারপরও সে এগুলোর উত্তর দিতে থাকবে কারণ মেয়েরা নিজের ব্যাপার নিয়ে কোন প্রশ্নের উত্তর দিতে ভীষণ পছন্দ করে।

মেয়েদের ইমপ্রেস করার মত আরও অনেক প্রশ্ন নিয়ে আমরা সবসময় আপনাদের সাথে থাকব এবং আপনারা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে এই ধরনের তথ্যগুলো জেনে নিয়ে ব্যক্তিগত জীবনে কাজে লাগাতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.