প্রাক্তন প্রেমিকার জন্মদিনের শুভেচ্ছা

আমরা অনেকেই প্রাক্তনকে প্রতিপক্ষ ভেবে থাকি। প্রাক্তন কে প্রতিপক্ষ ভাবা কখনো উচিত নয়। আপনাদের হয়তো প্রাক্তনের প্রতি অনেক বেশি রাগ ও খুব থাকতে পারে কিন্তু এর মানে এই নয় যে আপনার প্রাক্তন আপনার প্রতিপক্ষ। প্রাক্তনের প্রতি সম্মান রাখতে হবে। সে আপনাকে হয়তোবা অনেক কষ্ট দিয়েছে কিন্তু তার জন্য আপনাকে শুভকামনা জানাতে হবে। সে আপনার সাথে খারাপ করলে আপনিও তার সাথে খারাপ করবেন তা হতে পারে না। বরং আপনি সবসময় তার পাশে থাকার চেষ্টা করবেন।

অনেক সময় আমরা একটা সম্পর্ককে থাকতে থাকতে হয়তো দুজনেই উপলব্ধি করতে পারি এই সম্পর্ক কন্টিনিউ করা আর সম্ভব হচ্ছে না। এমন অবস্থায় সম্পর্ক শেষ করার মত কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হয়। হয়তোবা দুজনের মেন্টালিটি ম্যাচ না করাই সম্পর্ক শেষ করতে হয় কিন্তু সম্পর্ক শেষ হওয়ার পরেও দুজনের প্রতি দুজনের সম্মান থাকা উচিত। দুজন দুজনকে সম্মান করলে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পরেও এর খারাপ প্রভাব কারো জীবনে পড়বে না। হয়তো এরপর দুজনেই নতুন করে জীবন শুরু করবেন। চেষ্টা করতে হবে আমরা যেন সুখে-দুখে সেই মানুষটিকে শুভকামনা জানাতে পারি।

জন্মদিন আমাদের প্রত্যেকের জীবনেই গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন। এই দিনে যেহেতু আমরা জন্মগ্রহণ করে থাকি তাই আমাদের আশেপাশের মানুষগুলো এই দিনে আমাদের শুভকামনা জানায়। আমরাও বিশেষ এই দিনগুলোতে নিজেদের আরো বেশি সমৃদ্ধ করার শপথ নিয়ে থাকি।

আমাদের আশেপাশের অন্যান্য মানুষদের মতো প্রাক্তনের জন্মদিনেও শুভকামনা জানানো উচিৎ। আপনারা অনেকেই হয়তো প্রাক্তনের জন্মদিনে শুভকামনা জানাতে গেলে নানা রকম ঝামেলার সম্মুখীন হন। কিভাবে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাবেন এ নিয়ে আপনাদের মনের ভেতর অনেক ভাবনা আসতে থাকে। আমাদের আজকের পোস্টে আমরা আপনাদের জানাবো কিভাবে আপনার প্রাক্তন কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাবেন।

আমরা যখন একটি রিলেশনশিপে থাকি তখন আমাদের প্রিয় মানুষকে নানাভাবে সারপ্রাইজ দিয়ে থাকি। তাদের জন্মদিনে সবচেয়ে ভালো উপহার দিয়ে উইশ করি। কিন্তু যখন এই রিলেশন ভেঙ্গে যায় তখন দুজনের প্রতি দুজনের খুব একটা বেশি দায়িত্ব থাকে না। সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর অনেকে হয়তো তার প্রাক্তনের মুখও দেখতে চায় না। তবে এমন না করে উচিত হবে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পরেও প্রাক্তন কে জন্মদিনের উপহার পাঠানো এবং সুন্দরভাবে জন্মদিনে উইশ করা।

আপনার প্রাক্তনের জন্মদিনে পুরনো কথাগুলো মনে করিয়ে দিতে পারেন। তার সাথে কিভাবে তার বার্থডে সেলিব্রেট করেছিলেন সেই মুহূর্তগুলোর কথা তাকে স্মরণ করে দিতে পারবেন। আপনাদের পথ আলাদা হলেও দুজন দুজনকে যে ভীষণ সম্মান করেন এই কথাগুলো তাকে জানাতে পারেন এসএমএসের মাধ্যমে। যদি তার ফেসবুক প্রোফাইলে অথবা পাবলিকলি উইশ করেন তাহলে নিজেদের ব্যক্তিগত কথাবার্তা গুলো এড়িয়ে যাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ হবে বলে মনে করি। ব্যক্তিগত কোনো কথা শেয়ার করার জন্য এসএমএস এর মাধ্যমে লিখে পাঠাতে পারবেন। তবে এই দিন পুরনো কথা খুব বেশি মনে না করাই ভালো হবে।

আপনার প্রাক্তন খেয়ে তার জীবনের প্রতিটি ধাপের জন্য শুভকামনা জানাবেন। সে যেন তার জীবনের প্রতিটি পরীক্ষায় সফলভাবে উত্তীর্ণ হতে পারে তার জন্য দোয়া করবেন। আপনারা দুজন যেন দুজনের জীবন নিয়ে খুব ভালো থাকতে পারেন এবং আপনাদের দুজনের পুরনো সম্পর্কের কোন খারাপ প্রভাব যেন কারো জীবনে না পড়ে তা জানিয়ে দিবেন। দুজন দুজনের নতুন সম্পর্ক গুলো কেউ ভীষণ সম্মানের সাথে দেখবেন। এভাবে আপনার প্রাক্তন কে সুন্দরভাবে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে পারবেন।

দুজন মানুষের মধ্যে সম্পর্ক চিরদিন না থাকতে পারে তারা একসাথে থাকার সিদ্ধান্ত না নিতে পারে কিন্তু কখনোই প্রাক্তনের জন্য অভিশাপ হবেন না। প্রাক্তনের জন্য আশীর্বাদ হয়ে আসুন। তার জীবনকে অনেক বেশি সুন্দর করে তোলার জন্য সাহায্য করুন। এমন হলে আপনিও মানসিক শান্তি পাবেন এবং অনেক ভালো থাকতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *