গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথোপকথন

আজ আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করব। যেসব ভাইয়েরা রিলেশনশিপ কন্টিনিউ করছেন তাদের জন্য আমাদের আজকের পোস্টটি অনেক কাজে দেবে বলে আমি মনে করি। আবার যারা এখনো রিলেশনে জড়ান নেই অথবা রিলেশনে জড়াবেন বলে ভাবছেন সেসব ভাইদের জন্যও এই পোস্টটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই আশা করব আপনারা সবাই এই পোস্টটি খুব মনোযোগ দিয়ে পড়বেন এবং আপনার মতামত আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন। আপনাদের মতামত জানার পর আমরা আবার এই টপিক নিয়ে নতুন আরেকটি পোস্ট আমাদের ওয়েবসাইটে দেওয়ার চেষ্টা করব।

আমাদের কাছে অনেক ভাইয়েরা অভিযোগ করেছেন যে তারা কিছুতেই তাদের গার্লফ্রেন্ডকে সামলাতে পারছেন না। গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথা বলার সময় সে অহেতুক রেগে যাচ্ছে এবং সেই রাগ অল্পতে ভাঙানো সম্ভব হচ্ছে না। আপনাদের অনুরোধের প্রেক্ষিতে আমরা আজকে এ লেখাটির নিয়ে এলাম। আমাদের এই লেখায় আপনাদের জন্য বেশ কিছু পরামর্শ থাকবে যা আপনাদের ব্যক্তিগত জীবনে অনেক উপকারে আসবে।

যারা গার্লফ্রেন্ডের প্যারায় রয়েছেন তাদের মনের অবস্থা আমরা অনুধাবন করতে পারছি এবং আমরা অনেক ভেবে বেশ কিছু উপায় বের করেছি যা প্রয়োগ করার মাধ্যমে আপনি আপনার গার্লফ্রেন্ডকে খুব সহজে কন্ট্রোল করতে পারবেন। আপনি চেষ্টা করবেন আমাদের আজকের পোস্টে দেওয়া সব পরামর্শ গুলো সঠিকভাবে মেনে চলতে এবং ধৈর্য ধরে সেই দিনটার জন্য অপেক্ষা করতে। আপনি যদি কিছুদিন ধৈর্য ধরে আমাদের পরামর্শ গুলো মেনে চলতে পারেন তবে সেদিন আর বেশি দূরে নয় যে আপনার গার্লফ্রেন্ড আপনার কথায় উঠবে এবং বসবে।

আমাদের আজকের লেখায় আপনি যা যা পাবেন

১. গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথা বলার উপায়।
২. গার্লফ্রেন্ডকে কন্ট্রোল করার উপায়
৩. গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথোপকথন

গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথা বলার উপায়

আপনি অনেক সময় লক্ষ্য করে থাকবেন আপনার গার্লফ্রেন্ড আপনাকে ইগনোর করছে এবং কথা বলতে চাইছে না। আপনি যদি এমন পরিস্থিতিতে পড়ে থাকেন এবং কোনভাবেই তার সাথে কথা বলার সুযোগ তৈরি করতে না পারেন তবে আপনাকে বেশ কিছু টিপস ফলো করতে হবে। যদি দেখেন আপনার গার্লফ্রেন্ড আপনাকে ইগনোর করছে তাহলে আপনিও তার দেখানো পথে হাঁটবেন। আপনিও তাকে ইগনোর করা শুরু করবেন এবং এমন একটা ভাব দেখাবেন যে আপনি তার কথা কখনো ভাবছেনই না। এমন পরিস্থিতি তৈরি করতে পারলে আপনার গার্লফ্রেন্ড অনেক ভয় পেয়ে যাবে এবং সে চাইবে আপনার সাথে কথা বলতে।

এমনটা করে যদি আপনি কোন ফলাফল না পেয়ে থাকেন তবে ব্যাপারটা নিয়ে আপনাকে এবার সিরিয়াস হতে হবে। আপনাকে কয়েকদিন তার পেছনে সময় দিয়ে আসল কারণ খুঁজে বের করতে হবে। যদি তেমন কোনো কারণ খুঁজে না পান তবে আরো কিছুদিন ধৈর্য্য ধরা উচিত।

গার্লফ্রেন্ডকে কন্ট্রোল করার উপায়

আপনারা যারা রিলেশনশিপে কন্টিনিউ করছেন তারা নিশ্চয়ই জানেন গার্লফ্রেন্ডকে কন্ট্রোল করা কত কঠিন একটা কাজ। আপনি যদি আপনার গার্লফ্রেন্ডকে ডানে যেতে বলেন সে নিশ্চয়ই বাঁয়ের দিকে চলে যাবে। আপনি তাকে কোন আপেল করতে গেলে সে হয়তো উল্টা আপনাকে শাসন করে। এমন পরিস্থিতি থেকে বের হতে চাইলে আপনাকে আর একটু কড়া হতে হবে। তবে হ্যাঁ, আপনি কখনোই উচ্চস্বরে তার সাথে কথা বলবেন না। আপনি যদি উচ্চস্বরে তার সাথে কথা বলেন তবে হিতে বিপরীত হতে পারে। আপনাকে চেষ্টা করতে হবে তার সব কথাগুলো গুরুত্ব দিয়ে শুনে ফেলতে এবং কুইক রেসপন্স করতে। তার কথার মধ্যে কখনো অন্য কোন বিষয় নিয়ে কথা বলতে যাবেন না। কখনো প্রয়োজনের অতিরিক্ত কিছু তাকে দিতে যাবেন না, প্রয়োজনের অতিরিক্ত কিছু দিলে তার এক্সপেক্টেশন আরো বেড়ে যাবে।

গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথোপকথন

গার্লফ্রেন্ডের সাথে কথা বলতে গেলে আপনি কম কথা বলার চেষ্টা করবেন এবং কথা শোনার চেষ্টা করবেন বেশি। সে হয়তো অনেক অপ্রয়োজনীয়’ কথা আপনার সাথে বলতে চাইবে আপনি এই অপ্রয়োজনীয়’ কথাগুলো খুব মনোযোগ দিয়ে শুনে থাকবেন। যখন তার কথা বলা শেষ হবে তখন এমনিতেই সে হাপিয়ে পড়বে এবং সেদিনের মত কথা শেষ করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.