শাড়ি পড়ার ডিজাইন

শাড়ি বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যবাহী পোশাকের নাম। বাংলাদেশের প্রায় অর্ধেক নারী শাড়ি পরিধান করে থাকে। একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশের প্রায়ই আশি পার্সেন্ট মেয়েরা শাড়ি পরিধান করত। আধুনিক যুগে এসে বাঙালিরা পশ্চিমা সংস্কৃতি ফলো করতে যাওয়ায় শাড়ি পরিধান করার হার অনেক কমে গেছে। বর্তমানে গ্রামের কিছু গৃহবধূরা নিয়মিত শাড়ি পরিধান করে থাকে।

নিয়মিত শাড়ি পইধান না করলেও দেশের এমন কোন মেয়ে নেই যে কখনো শাড়ি পরিধান করেনি। যে কোন বড় উৎসব অনুষ্ঠানে মেয়েরা সবসময় শাড়ি পরিধান করে থাকে। শাড়ি পরিধান না করলে যেন উৎসবের আমেজ আঁচ করা সম্ভব হয় না। বিয়ে অথবা অন্যান্য সামাজিক অনুষ্ঠানেও মেয়েরা রংবেরঙের শাড়ি পরিধান করে। বিয়ের সময় গায়ে হলুদের দিন হলুদ রঙের শাড়ি পরিধান করা মেয়েদের প্রথম পছন্দ।

আমাদের আজকের পোস্টে আমরা শাড়ি পড়ার বিভিন্ন ডিজাইন নিয়ে আলোচনা করব। আপনারা যারা নতুন শাড়ি পরা শিখছেন অথবা শিখতে চাইছেন তারা আমাদের এই লেখা থেকে শাড়ি পড়ার বিভিন্ন ডিজাইন জেনে নিতে পারবেন।

ভারতবর্ষের বিভিন্ন অঞ্চলের নারীরা বিভিন্ন ডিজাইনের শাড়ি পরিধান করে থাকে। বাংলাদেশে বেশ কিছু ক্যাটাগরি শাড়ি আপনি দেখতে পাবেন। টাঙ্গাইল জামদানি সিল্কের শাড়ি ঢাকাই শাড়ি এ ধরনের অনেক নাম রয়েছে। একটা সময় ছিল যখন দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দক্ষ কারিগর দ্বারা সুন্দর সুন্দর ডিজাইনের শাড়ি তৈরি করা হতো। বর্তমানে সারের চাহিদা খুব একটা না থাকায় তেমনভাবে শাড়ি তৈরি করা হয় না। এক সময় পুরো ভারতবর্ষে বাংলাদেশের শাড়ির অনেক নাম ডাক ছিলো। ভারতবর্ষের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ব্যবসায়ীরা শারে নিতে বাংলাদেশে আসতো।

বাংলাদেশের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীরা অনেকেই প্রধান পোশাক হিসেবে শাড়ি ব্যবহার করে। তাদের শাড়ি পরার ডিজাইন একটু ব্যতিক্রমধর্মী। অনেক মেয়েরা বিভিন্ন উৎসবে ওইসব ডিজাইনের শাড়ি পরিধান করতে চায়। আপনারা যদি এসব ডিজাইন ফলো করতে চান তবে আমাদের পোষ্টের নিচের দিকের ছবিগুলো দেখে নিতে পারেন।

শাড়ি পরিধান করার আগে প্রথমে মাথায় রাখতে হবে কোন রং এর শাড়ি এবং কোন ডিজাইনের শাড়ি আপনার গায়ে খুব ভালো মানাবে। আপনি যদি আপনার জন্য সঠিক শাড়িটি সিলেক্ট করতে পারেন তবে যে কোন উৎসবের জন্য ওই শাড়িটি ব্যবহার করতে পারবেন। সঠিক সারি ব্যবহার করার জন্য আপনাকে বিভিন্ন ডিজাইনের শাড়ি সম্বন্ধে স্পষ্ট ধারণা রাখতে হবে। এরপর আপনি শাড়ি পরার ডিজাইন সম্বন্ধে অবগত হবেন। শাড়ি পরার ডিজাইন শেখার জন্য আপনাকে কারো কাছে সাহায্য চাইতে হবে না। আমাদের ওয়েবসাইটে দেওয়া ছবিগুলো দেখে স্টেপ বাই স্টেপ আপনি শাড়ি পরার ডিজাইন শিখে নিতে পারবেন।

শাড়ি পড়া ডিজাইনের সাথে সাথে আপনাকে সঠিক গহনা চয়েস করার দক্ষতা রাখতে হবে। স্যারের সাথে সুন্দর গহনাগুলো সিলেক্ট করতে না পারলে খুব একটা ভালো দেখাবে না। তাই শাড়ির কালার এর সাথে ম্যাচিং করে গহনার ডিজাইন সিলেক্ট করার চেষ্টা করুন। আপনার ত্বকের সাথে কোন শাড়িটি সুন্দর মানায় সেটি সিলেক্ট করুন এবং কোন গহনাগুলো সবচেয়ে সুন্দর দেখাবে সেটি বোঝার চেষ্টা করুন।

আপনি যদি প্রথমবার শাড়ি পড়ে থাকেন তবে শাড়ি সিলেক্ট করার ক্ষেত্রে অনেক সমস্যার মুখে পড়তে হবে। আপনি যেন এই সমস্যা সমাধান করতে পারেন সেজন্য আমাদের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন কালারের শাড়ির ছবি দেওয়া হয়েছে। এইসব শাড়িগুলো কোন ডিজাইনের পড়বেন তা ছবির মাধ্যমে দেখানো হয়েছে। আপনি চাইলে এই ছবিগুলো আপনার থেকে বড় কোন আপুকে দেখিয়ে পরামর্শ নিতে পারবেন। অনেক সময় নিজে নিজে পছন্দ করা কঠিন হয়ে পড়ে এবং সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগতে হয়। একা একা সিদ্ধান্ত হীনতায় না বুকে নিজের প্রিয়জনের সাথে শাড়ির ছবিগুলো শেয়ার করুন এবং তাদের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে নিন। এরপর শাড়ি পড়ার ডিজাইনগুলো দেখে নিজে নিজে চেষ্টা করুন। আশা করি আস্তে আস্তে শাড়ি পরার কঠিন ডিজাইন গুলোও আপনি আয়ত্ত করতে সক্ষম হবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *