স্কুল নিয়ে স্মৃতিচারণ

খুব ছোটবেলায় আমরা স্কুলে যাওয়া শুরু করি। এরপর প্রাথমিক বিদ্যালয় এর গণ্ডি পার হয়ে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রবেশ করি। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে-ই আমরা অনেক মধুর সময় পার করে এসেছি। স্কুল জীবনের দিনগুলো সত্যিই অভুলনীয়। আমাদের প্রত্যেকের কাছে স্কুল জীবনের দিনগুলো সবচেয়ে সুন্দর দিন ছিল। আমাদের বয়স যত বাড়তে থাকে স্কুল জীবনের দিনগুলো নিয়ে আমরা ততবেশি নস্টালজিক হয়ে পড়ি। আমাদের পড়ে আসা ক্লাসরুম হয়তো এক সময় বদলে যায়, আমাদের স্কুলের মাঠ হয়তো ভিন্ন আকার ধারণ করে ফেলে, আমাদের স্কুলের শিক্ষকরা একসময় অবসরে চলে যায় কিন্তু স্কুলের দিকে তাকালে মনে হয় সেই পুরনো দিনগুলোর কথা।

স্কুলের কথা আসলে সবার প্রথমে বলতে হয় স্কুল জীবনের বন্ধু গুলোর কথা। স্কুল জীবনে আমরা অনেক বন্ধু পেয়েছিলাম যাদের অনেকেই মাঝরাস্তায় ঝরে গেছে। স্কুলের বন্ধু গুলোর মধ্যে অনেকে খুব বড় অবস্থানে চলে গেছে। সেই ছোট্ট মুখগুলো আজ অনেক বড় বড় দায়িত্ব কৃতিত্বের সাথে পালন করে যাচ্ছে। ছোটবেলায় সব বন্ধুদের অনেক স্বপ্ন ছিল বড় হয়ে আমাদের স্কুলের জন্য ভালো কিছু করব। সময়ের সাথে সাথে ছোটবেলার বন্ধু গুলো কোথায় যেন হারিয়ে গেছে। প্রয়োজনের তাগিদে মানুষ ব্যস্ত হয়ে পড়ে, ভুলে যায় পুরনো দিনের কথাগুলো। কাজের ফাঁকে ফাঁকে একসময় মনে পড়ে ফেলে আসা দিনগুলোর কথা।

বন্ধুদের পর মনে পড়ে আমাদের প্রাণ প্রিয় শিক্ষকদের কথা। ছোটবেলায় যখন দুষ্টামি করতাম শিক্ষকরা আমাদের নানা উপায়ে শাসন করতো। সেই সময়ে শিক্ষকদের উপর আমাদের অনেক ক্ষোভ ছিল। বড় হয়ে আস্তে আস্তে বুঝতে পারি আমাদের শিক্ষকরা আমাদের মঙ্গলের জন্যই শাসন করেছিলেন। শিক্ষকরা সবসময় চেষ্টা করেন তাদের ছাত্ররা খুব ভালো কিছু করে স্কুলের নাম চারিদিকে ছড়িয়ে দিক। আমাদের বন্ধুদের অনেকেই আজ সফল, স্কুলের নাম তাদের জন্য দেশের অনেক মানুষের মুখে মুখে। সত্যিই, যেভাবেই প্রশংসা করে না কেন আমাদের জীবনে শিক্ষকদের ভূমিকা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়।

এখানে আপনারা আরও যা যা পাবেন

১. স্কুলের স্মৃতি যা ভোলার নয়
২. স্কুলের শেষ দিনের স্মৃতিচারণ
৩. স্কুল নিয়ে স্ট্যাটাস
৪. স্কুলের বিদায় অনুষ্ঠানের ভাষণ

স্কুলের স্মৃতি যা ভোলার নয়

আমাদের প্রত্যেকেরই স্কুল জীবনের কিছু স্মৃতি রয়েছে যা কখনোই ভুলতে পারবো না। বন্ধুদের সাথে দুষ্টুমি করার দিনগুলো সত্যিই আমার কাছে অনেক স্পেশাল। ক্লাস ফাঁকি দিয়ে নদীর পাড়ে ঘুরতে যাওয়া, বন্ধুদের সাথে লুকোচুরি খেলা, দূরের বাগানে আম চুরি করে খাওয়া এই সব স্মৃতিগুলো আমার মনের কোণে যত্ন করে রাখা। আজ অনেক বছর পার হয়ে গেলেও বারবার আমি ফিরে যাই সেই পুরনো দিনগুলোতে। আমার সেই পুরনো দিনের বন্ধুরা এখনো আমার কাছে সেই ছোট মনে হয়। বারবার ফিরে যেতে ইচ্ছে করে সেই ছোটবেলায়। বাস্তবতা বড়ই কঠিন। ছোটবেলায় ভাবতাম কবে বড় হব, বড় হয়ে এখন উপলব্ধি করতে পারছি ছোটবেলাটা আমাদের জন্য কতটা মজার ছিল।

স্কুলের শেষ দিনের স্মৃতিচারণ

আমাদের প্রিয় স্কুল ছেড়ে যেদিন আসতে হলো, চোখের জল কোনো ভাবেই আটকাতে পারছিলাম না। এই চিরচেনা স্কুল মাঠে আর খেলতে পারব না ভেবেই নিজেকে সামলাতে পারছিলাম না। টিফিনের সময় বন্ধুরা ভাগাভাগি করে টিফিন খেতে পারব না তা কখনও হয় নাকি। কিন্তু শেষমেশ বাস্তবতার কাছে আমাদের হার মানতে হয়। এই পরিচিত স্কুলের আঙিনা ছেড়ে আমাদের চিরতরে চলে আসতে হয়। স্কুলের শেষ দিন সব বন্ধুরা মিলে গলা ধরে কান্না করেছিলাম, আমাদের শিক্ষকরা বারবার এসে আমাদের শান্তনা দিচ্ছিলেন।

স্কুল নিয়ে স্ট্যাটাস

স্কুলের অনেক স্মৃতি নিয়ে আমরা ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে চাই। আপনি নিজেও যদি স্কুল সম্বন্ধে সুন্দর স্ট্যাটাস দিতে চান তাহলে আমাদের পুরো লেখা টি কপি করে ফেসবুকে শেয়ার করতে পারবেন।

স্কুলের বিদায় অনুষ্ঠানের ভাষণ

আপনি যদি স্কুলের বিদায় অনুষ্ঠানের ভাষণ দিতে চান তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে স্কুলের বিদায় অনুষ্ঠানের ভাষণ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। স্কুলের স্মৃতিচারণ নিয়ে অনেক সুন্দর সুন্দর লেখা আমাদের ওয়েবসাইটে পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.