প্রিয় মানুষের সাথে কথা

আমাদের প্রত্যেকের জীবনেই বিশেষ কিছু মানুষ থাকে। আমরা সব সময় চাই সেই বিশেষ মানুষগুলোকে আমাদের ভালোবাসা দিয়ে বেঁধে রাখতে। আজ আমরা আলোচনা করতে চলেছি আপনি কিভাবে আপনার প্রিয় মানুষের সাথে কথা বলে তার মনের ভিতরে বড় একটি জায়গা দখল করে নিতে পারবেন।

আপনি সব সময় চেষ্টা করবেন আপনার প্রিয় মানুষের প্রত্যেকটি কথা অত্যন্ত মনোযোগ দিয়ে শুনতে। আপনার প্রিয় মানুষকে এমন গুরুত্ব দেবেন যেন সে যদি কোন পাগলামিও করে তা আপনি মুখ বুজে মেনে নিতে পারেন। আপনার প্রত্যেকটি কাজের আগে আপনার প্রিয় মানুষকে গুরুত্ব দিতে হবে। সে যেন বুঝতে পারে আপনি এই পৃথিবীর অন্য সবকিছুর আগে তাকে প্রায়োরিটি দেন। তার প্রতি আপনি যথেষ্ট যত্নশীল হলে সেও আপনার প্রতি আস্তে আস্তে দুর্বল হবে।

প্রিয় মানুষের সাথে কখনো উচ্চস্বরে অথবা কটু কথা বলবেন না। আপনার ভালবাসার মানুষের সাথে ভালোবাসা মাখানো কণ্ঠেই কথা বলবেন। চেষ্টা করবেন তার সামনে নিজের মাথা একদম ঠান্ডা রাখার, কখনোই আপনার প্রিয় মানুষের সামনে নিজের মাথা গরম করবেন না। যদি কখনো আপনার প্রিয় মানুষের উপর আপনি কোন কারণে রেগে যান তাহলে চেষ্টা করবেন তার আশেপাশে ওই সময় টি না থাকার। পরে যখন আপনার রাগ অনেকটা কমে যাবে তখন তার সামনে যাবেন এবং ব্যাপারটা তাকে বুঝিয়ে বলবেন।

কখনো আপনার প্রিয় মানুষ যদি আপনার উপর রেগে থাকে তাহলে তার পছন্দের জিনিসগুলো দিয়ে তার রাগ ভাঙ্গানোর চেষ্টা করুন। এভাবে যদি আপনি তার রাগ ভাঙ্গাতে না পারেন তবে তার পাশাপাশি থাকার চেষ্টা করুন। আপনি কার সাথে হাসিমুখে কথা বললে দেখবেন একটা সময় আপনা আপনি তার রাগ অনেকটা কমে গেছে।

আপনি যদি আপনার প্রিয় মানুষের থেকে অনেক দূরে থাকেন এবং এক্ষেত্রে ফোনে অথবা মেসেজে কথা বলেন তবে চেষ্টা করবেন আপনাদের মধ্যে কোন ধরনের অপ্রয়োজনীয় কথা যেন না হয়। অপ্রয়োজনীয় কথা বেশি বাড়ালে একটা সময় তা ঝগড়ায় রূপ নেয়। দূরে থাকলে সব সময় ভালোবেসে কথা বলার চেষ্টা করবেন। কোন বিষয় নিয়ে কখনও বাড়াবাড়ি করবেন না। যদি কোন কারনে তার উপর আপনার রাগ হয় তবে কিছুক্ষণ নিজেকে একা রাখবেন এবং অন্য কোন কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ার চেষ্টা করবেন। আপনার মনোযোগ অন্যদিকে চলে গেলে আপনা আপনি রাগ একসময় কমে যাবে এবং আপনি নিজে থেকেই তার সাথে কথা বলা শুরু করবেন।

বিশেষ দিনগুলোতে আপনার প্রিয় মানুষকে সময় দেবার চেষ্টা করবেন। আপনার প্রিয় মানুষের জন্মদিন অথবা যে কোন উৎসবের দিন চেষ্টা করবেন তার পাশে থেকে সময় গুলো উপভোগ করার। সুন্দর সুন্দর মুহূর্তগুলো আপনাদের সম্পর্ককে আরো উপভোগ্য করে তুলবে। এই বিশেষ দিনগুলোতে আপনার প্রিয় মানুষকে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার চেষ্টা করবেন। আপনারা দুইজন রাস্তায় হাত ধরে পাশাপাশি হাঁটবেন, রাস্তার ধারের খাবার কিনে খাবেন, পাশাপাশি রিকশায় উঠবেন এবং পাশাপাশি বসে কিছুক্ষণ গল্প করবেন। এই বিশেষ মুহূর্তগুলো আপনার প্রিয় মানুষ আপনার কাছে সবসময়ই চাইবে এবং আপনি নিজেকে প্রস্তুত রাখবেন ।

মাঝে মাঝে নিজ হাতে কিছু বানিয়ে আপনার প্রিয় মানুষকে খাওয়াতে পারেন, আপনার হাতে বানানো কোন খাবার তার কাছে অনেক স্পেশাল হবে। তার পছন্দের চকলেট অথবা আইসক্রিম কিনে মাঝে মাঝে তাকে চমকে দিতে পারেন। আপনার প্রিয় মানুষ যদি কোন সময় অসুস্থ হয়ে পড়ে তবে শোনার সাথে সাথে তার কাছে চলে যাবেন এবং সে সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত তার পাশে থাকার চেষ্টা করবেন। আগেই বলেছি আপনার অন্য সব কাজের আগে আপনার প্রিয় মানুষকে প্রায়রিটি দিতে হবে।

আপনি যদি কোন কারনে খুব বেশি ব্যস্ত হয়ে পড়েন তবে এই ব্যস্ততার মাঝে তাকে ফোন দিয়ে বারবার ক্ষমা চাইবেন এবং বলবেন কাজ শেষ হলে আপনি সর্বপ্রথম তার সাথে দেখা করবেন। আপনার ব্যস্ততার কথা বুঝিয়ে বললে সে নিশ্চয়ই বুঝতে পারবে এবং আপনার জন্য শুভকামনা জানাবে।

প্রিয় মানুষের সাথে কথা বলা থেকে শুরু করে কেমন আচরণ করবেন তার সবকিছুই আজকের পোস্টে আলোচনা করলাম। আপনি এ সম্বন্ধে আরো জানতে চাইলে পরের পোস্টের জন্য অপেক্ষা করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.