খাওয়া নিয়ে কৌতুক

সারাদিন অক্লান্ত পরিশ্রমের পর আমাদের বিশ্রামের দরকার হয়। কঠোর পরিশ্রমের পর বিশ্রাম করলে আমাদের শরীর ও মন দুটোই কেমন নেতিয়ে পড়ে। শরীর ও মন চাঙ্গা করার জন্য আমাদের দরকার পড়ে বিনোদনের। সুস্থ ও সুন্দর বিনোদন আমাদের মানসিক প্রশান্তি দেয়। তাই প্রত্যেকটি মানুষের সুস্থ ও সুন্দর বিনোদন গ্রহণ করা প্রয়োজন। এই বিনোদন পাওয়া যেতে পারে নানা মাধ্যমে। বিভিন্ন জন বিভিন্ন ভাবে বিনোদন নেয়ার চেষ্টা করে। কেউ অবসর সময়ে গল্পের বই পড়ে, কেউ টিভি সিরিয়াল দেখে, কেউ আবার বন্ধুদের সাথে গল্পগুজব করে সময় কাটায়।

অনেকে অবসর সময়ে নানা রকম মজার গল্প পরতে পছন্দ করে। হাসির গল্প গুলো পড়ে অনেকে নিজের মনকে চাঙ্গা করে। আজ আমরা নানা রকম হাসির কৌতুক নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করতে চলেছি। আজ আমরা খাওয়া নিয়ে হাসির কৌতুক সম্বন্ধে আলোচনা করব। যেসব বন্ধুরা খাওয়া নিয়ে মজার মজার গল্প ও কৌতুক পড়তে আগ্রহী তারা সম্পূর্ণ মনোযোগ দিয়ে আমাদের আজকের লিখাটি পড়ে ফেলুন। এখন থেকে মজার মজার ঘটনা নিয়ে হাসির কৌতুক গুলো আমাদের ওয়েবসাইটে খুব সহজেই পেয়ে যাবেন। খাওয়ার ঘটনা নিয়ে মজার মজার কৌতুক আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনাদের সাথে শেয়ার করব।

খাওয়া নিয়ে আমাদের আশেপাশে নানা রকম মজার ঘটনা ঘটে। আমাদের আত্মীয় স্বজনরা একসাথে যখন খেতে বসে তখন অনেকেই মজার কান্ড কারখানা করে থাকে। কেউ থাকে অনেক পেটুক যেসব খাবার নিমেষেই শেষ করে দেয়, আবার কেউ কেউ একটু খেতেই হাপিয়ে ওঠে। খাওয়া নিয়ে এমনই সব মজার ঘটনা আপনাদের সামনে তুলে ধরব। তো চলুন আমাদের আজকের আলোচনা শুরু করি।

আজকের লেখায় আপনারা যা যা পাবেন

১. বল্টুর খাওয়া নিয়ে মজার কৌতুক
২. গোপাল ভাঁড়ের খাওয়া নিয়ে হাসির কৌতুক
৩. বন্ধুর খাওয়া নিয়ে হাসির কৌতুক

বল্টুর খাওয়া নিয়ে মজার কৌতুক

বন্ধুরা, আপনারা নিশ্চয় জানেন কৌতুক জগতে বল্টু এক বিখ্যাত চরিত্রের নাম। যে কোন চরিত্র আমরা বল্টুর নাম দিয়ে চালিয়ে দিতে পারি। খাওয়া নিয়ে বিভিন্ন কৌতুকে প্রধান চরিত্র বল্টু। কখনো কখনো বিনা দাওয়াতে বল্টু বিয়ে বাড়িতে খেতে চলে যায়। শ্বশুরবাড়িতে নানান জিনিস খেতে গিয়ে বল্টু হরেক রকম আজব আজব ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে।

বল্টু একদিন শ্বশুরবাড়ি গেছে, সঙ্গে নিয়ে গেছে মস্ত বড় পাঙ্গাস মাছ। বল্টু শশুরবাড়ী যাওয়ার পর শাশুরি বাড়িতে পোষা মুরগি তার জন্য জবাই করেছে। দুপুরে মুরগির গোশত দিয়ে বল্টুকে খেতে দেওয়া হয়েছে। বল্টুর তো ভীষণ মন খারাপ, সঙ্গে নিয়ে আসলো মস্ত বড় পাঙ্গাস মাছ আর তা তাকে খেতে দেওয়া হলো না। রাতে শ্বশুর-শাশুড়ির পাশের ঘরে বল্টুকে শুতে দেওয়া হয়েছে। ঘুমানোর সময় নাক ডাকছে আর বলছে পাঙ্গাস, পাঙ্গাস। তার এই পাঙ্গাস পাঙ্গাস শুনে পাশের ঘর থেকে শাশুড়ি ও জোরে জোরে নাক ডাকতে রাখতে বলতে শুরু করল কাইল খাইস, কাইল খাইস।

গোপাল ভাঁড়ের খাওয়া নিয়ে হাসির কৌতুক

গোপাল ভাঁড় আমাদের কাছে খুবই পরিচিত একটি নাম। নিজের অভিনব বুদ্ধি খাটিয়ে নানারকম বড় বড় সমস্যার সমাধান করতেন গোপাল ভার। এমন সমস্যার সমাধান করতে বিভিন্ন অদ্ভুত কাজকর্ম করতে হতো তাকে। খাওয়া নিয়ে রয়েছে গোপাল ভাঁড়ের অসংখ্য ঘটনা। গোপাল ভাঁড়ের খাওয়া নিয়ে মজার মজার কৌতুক গুলো আমরা নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করব। আপনারা যারা গোপাল ভার কে পছন্দ করেন তারা খুব সহজেই আমাদের ওয়েবসাইটে গোপাল ভাড়ের কৌতুক গুলো পড়তে পারবেন।

বন্ধুর খাওয়া নিয়ে হাসির কৌতুক

আমাদের সবার জীবনেই এমন একটি বন্ধু থাকে যে সব সময় অন্য বন্ধুদের হাসাতে থাকে। সব বন্ধুরা একত্রিত হলে নানা রকম মজার ঘটনা ঘটায়। বন্ধুদের সাথে খাওয়া নিয়ে ঘটে যাওয়া মজার মজার ঘটনা নিয়ে বিভিন্ন কৌতুক আমাদের ওয়েবসাইটে পেয়ে যাবেন। আপনি যদি খাওয়া নিয়ে কৌতুক পছন্দ করেন তবে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে চোখ রাখুন এবং পড়ে ফেলুন সমস্ত কৌতুক গুলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.